মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

ভিন্নজগত

  ভিন্নজগতঃ        প্রাকৃতিকসৌন্দর্যের লীলাভূমি  সবুজের সমারোহে আমাদের এই দেশ।নদী-নালা, খাল-বিল, পাহাড়-পর্বত,  সবুজ  বনভূমি  সব মিলে  এ  যেন বিধাতার  নিজ  হাতে  গড়া  কোনো  স্বর্গভূমি।কিন্তু  কালের  চক্রে  সেই  অপরূপ  সৌন্দর্য  কোথায়  যেন  হারিয়ে যাচ্ছে,  হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের  স্বাভাবিক  সৌন্দর্যবোধটুকু,নগর সভ্যতার  কোলাহল আর ধোঁয়ার  বিষাক্ত  ছোবলে মুক্ত  আকাশ-বাতাসঢেকে  ফেলছে,  হাঁফিয়ে  উঠছে  সৌন্দর্য পিপাসু  মানুষগুলো,  হারিয়ে  ফেলছি  আমরা  আমাদের  স্বাভাবিক  সুস্থতা।একটুখানি স্বস্ত,  তৃপ্তিরও প্রশান্তির ছায়াদেওয়ার প্রত্যাশায় উত্তর  জনপদের  গঞ্জিপুরের  নৈসর্গিক  পরিবেশে  প্রকৃতিপ্রেমী  কিছু  মানুষের  প্রয়াসে গড়ে উঠেছে  ভিন্ন  আঙ্গিকে  ‘ভিন্নজগৎ’।

        

         সৈয়দপুর-রংপুর  মহাসড়কের  পাশে পাগলাপীরের  উত্তরে  গঙ্গাচড়া  উপজেলার  খলেয়া  ইউনিয়নের  গঞ্জিপুরনামক  স্থানে।  উত্তর  বাংলার  অপরূপ  প্রাকৃতিক  সৌন্দর্যে ঘেরা এক  পল্লীতে  ভিন্ন  আঙ্গিকে  নির্মিত  এক  ব্যতিক্রমী  পিকনিক  স্পট।  ভিন্নজগৎ  নামের  পরিকল্পিত  পিকনিক  স্পট  ও  শিশু পার্কটি  সাজানো  হয়েছে  মনের  মাধুরী  দিয়ে যা নিজের  চোখে  না দেখলে  বিশ্বাস  হয়  না।

        

         ভিন্নজগৎ  কোনো ভিন্নগ্রহে  বা  উপগ্রহের  নয়।আমাদের  মাটির  পৃথিবীতে এর  অবস্থান।বেসিক  ব্যাংক  সৈয়দপুর  শাখার  আর্থিক  সহায়তায়  দেশের  কজন  শিল্প-উদ্যোক্তা,  দেশি-বিদেশি  শিল্পী স্থপতি,  শোভানুরাগী  ও  অগণিত  শ্রমিকের  নিরলস  প্রচেষ্টার  ফসলএই  ভিন্নজগৎ। শিক্ষামুলক  ভ্রমণে ভিন্নজগৎ  অন্যতম  স্থান  হিসেবে  ইতোমধ্যে  স্বীকৃতি  লাভ  করেছে।  ভিন্নজগতে  স্থাপিত  প্লানেটরিয়াম, রোবট স্ক্রীন জোন  ছাড়া  গ্রামবাংলার  আধুনিকতার ছোঁয়ায় নির্মিত শপিংমল, ৫০০ আসনের কনফারেন্স কেন্দ্র, কমিউনিটি সেন্টার, সুইমিংপুল, মসজিদ, শিশু কিশোরদের  আনন্দ দেওয়ার প্রয়াসে  শিশুকানন, মেরি গোরাউন্ড, হেলিকপ্টার ফ্লাইং জোন,  নাগরদোলা,   ক্যাঙ্গারু মু ভিং মনো  ট্রেন,   রেসিং  হর্স,  সি  প্যারাডাইস,  ডিয়ার  পার্ক,  পিকক  গার্ডেন,  বিশালকায়  মাটির  তৈরি  হাতি,  রয়েল  বেঙ্গল  টাইগার,  শাপলা, কৃত্রিম  ঝরনা প্রভৃতি।

        

         পিকনিকের জন্য ভিআইপি ও সাধারণ মানের কটেজ এখানে রয়েছে সার্বক্ষণিক বিদ্যুতের নিশ্চয়তা  এবং  ক্লোজ  সার্কিট  ক্যামেরার  মাধ্যমে  সুরক্ষিত  নিরাপত্তার  ব্যবস্থা। আর  সারা  বিশ্বের  সঙ্গে  টেলিযোগাযোগ  ও  ইন্টারনেট  সুবিধা। প্রতিদিন  প্রতিমাসে  ভিন্নজগৎ  সাজানো হচ্ছে নতুন আঙ্গিকে, ভিন্নমাত্রায় অন্য আদলে। সেদিন আর বেশিদূরে নয়, ভিন্নজগৎ  হয়ে উঠবে বাংলাদেশের প্রধান টুরিষ্ট স্পট।

কিভাবে যাওয়া যায়:

বাস যোগে ঢাকা থেকে রংপুর।রংপুর থেকে বাস যোগে পাগলাপীর।পাগলাপীর থেকে সিএনজি যোগে ভিন্নজগৎ।